আর কত মানুষের কথায় কান দেবেন? আর কত?

It is okay to mess up. It is okay to cry. It is okay to search for someone you wanna hug so much. It is okay to think weird. It is okay to start a startup with your friends. And it is okay to fail.

১৯৯৫ সালে এক প্রোগ্রামার, পিয়েরে ওমাইডার ‘অকশন ওয়েব’ নামে একটা ছোট ওয়েবসাইটে নিজের ব্যক্তিগত কিছু জিনিস বিক্রি করছিলেন।

কিন্তু সেদিন হুট করেই সাইটে প্রচুর পরিমাণ ভিজিটর আসতে শুরু করে। এত পরিমাণ ভিজিটর দিনে দিনে বাড়তে থাকে যে, তাকে হোস্টিং আপগ্রেড করতে হয় এবং একজন মানুষ রাখা লাগে পুরো বিষয়টা দেখাশোনা করার জন্য।

এই ওয়েবসাইটকে আমরা সবাই বর্তমানে ‘ইবে’ হিসেবে চিনি। 🔥

দুই বন্ধু নিজেদের একটা ভি ডব্লিউ বাসের পেছনে নিজেদের বিয়ার বিক্রি করতেন। যখন সেটা ভালো চলছিলো না, তখন তারা স্ন্যাপল নামে আরেকটা কোম্পানির নিজস্ব পণ্য সম্পর্কে জানতে পারলেন।

তারপর তারা নিজেদের হাতের তৈরি ‘অ্যারিজোনা গ্রিন টি’ নামে একটা কোম্পানি তৈরি করেন।

সেই অ্যারিজোনা গ্রিন টি আজকে আমেরিকার নাম্বার ওয়ান সফট ড্রিংক্স ডিস্ট্রিবিউটর, যারা সারা পৃথিবীতে সেই সফট ড্রিংক্স বিক্রি করছে। 🔥

রেস্টুরেন্ট ব্যবসা করার আইডিয়া আসে, এক দম্পতির মাথায়। তারা তৈরি করে নিজেদের হোম মেইড খাবার টেকঅ্যাও্য়ে সার্ভিস, গ্রাবহাব!

আজকের দিনে গ্রাবহাব কোম্পানির মূল্য প্রায় ৫০০ কোটি ডলারের বেশি। 🔥

হাওয়ার্ড নামে একটা তরুণ মার্কেটার, ইটালিতে ঘুরতে যায়। সেখানে গিয়ে একটা কফিশপের কফি খুব পছন্দ করে। সে সেটাতে কিছু ইনভেস্ট করতে চায় এবং সেটাকে আপগ্রেড করার কথা বলে।

কিন্তু সেই কফিশপের মালিক বিরক্ত হয়ে বরঞ্চ তাকে পুরো কোম্পানি কিনে নিতে বলে। সে মাত্র কয়েক হাজার ডলারে সেই কোম্পানির নামসহ সবকিছু কিনে নেয়। সেই কোম্পানি হচ্ছে, স্টারবাকস। 🔥

১৯১৭ সালে জাপানের মাতুসুশিতা নামে একটা ছেলে এক ইলেকট্রিক দোকানে কাজ করতে করতে উন্নত ধরনের লাইট সকেট তৈরি করা শিখে যায়।

তার দোকানের বস এসব পছন্দ করতেন না, তাই সে নিজের বেইসমেন্টেই সেসব লাইট সকেট তৈরি করা শুরু করে। একইসাথে সেই বেইসমেন্টে বসেই বিভিন্ন ধরণের বাইসাইকেল ল্যাম্প এবং অন্যান্য ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রাদি তৈরি করতে থাকে।

সে নিজের কোম্পানির নাম দেয়, মাতুসিশিতা ইলেক্ট্রনিক্স। তারপরে ২০০৮ সালে সেই কোম্পানি নাম চেঞ্জ করে হয়, প্যানাসনিক। 🔥


এত ঘটনা বলার পেছনে আমার মূল যুক্তিটা হচ্ছে, আপনি নতুন কিছু করতে চাইছেন?

আপনাকে পাগল হওয়া লাগবে। কে কী বলছে, কে কী ছড়াচ্ছে, কে কী করছে আপনার পেছনে, কে আপনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে; এসবে আপনাকে পাত্তা দিলে হবে না।

নিজের পাগলামি নিজেই করুন। বন্ধুদের সাথে নিয়ে করুন। আপনি ভবিষ্যৎ জানেন না। আপনি জানেন না যে, আপনারা আইডিয়ার দাম আসলে কত!

আজকে বাংলাদেশে কয়েকশ কোম্পানি আছে, অর্গানাইজেশন আছে, সেলিব্রেটি আছে, স্টার্টআপ আছে – বাজি ধরে বলতে পারি – এদের মধ্যে অনেকেই আগামী দশ বছর পরে থাকবে না, টিকবে না। ✅

যে আপনার সাথে থাকবে, সে আপনার সাথে গালিও খাবে। যে আপনার সাথে থাকবে, সে আপনার কোম্পানিকে নিজের কোম্পানি ভাববে। এমন কাউকে খুঁজে বের করুন। তারপর টিম সেটআপ করুন।

টিমে না চাইলে, নিজেই শুরু করুন! দুজনে মিলে, চারজনে মিলে, বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ড মিলে ফিউচারের জন্য বেটার কিছু শুরু করুন!

যে আপনার পেছনে কাটাপ্পার মতো ছুড়ি দিয়ে আঘাত করবে, যে আপনাকে সামনে থেকে ‘ভাই’ আর পেছন থেকে ‘তুই রাজাকার’ বলে গালি দেবে – তাকে সাথে নিয়ে চলার থেকে তাকে আগে থেকেই খুন করে ফেলা (নট লিটারেলি) আপনার কোম্পানির জন্য উত্তম। 💯

আপনি পাগল? আপনি একশ’টা স্টার্টআপ করেছেন? একটাও সফল হয় নি? তাতে কী?

প্রত্যেক সফল উদ্যোক্তার উঠে আসাতেই তো ফেইলিয়ার ছিল।

জর্জ সরোস, নাৎসি বাহিনীর হাত থেকে পালিয়ে এসে আজকে বিলিয়ন ডলারের ইনভেস্টর;

আরিয়ান হাফিংটন, ৩৬টা প্রকাশকের থেকে ধাক্কা খেয়ে এসে পৃথিবীর সবচেয়ে সেরা ব্লগগুলোর একটা তৈরি করেছেন, হাফিংটন পোস্ট;

বিল গেটস তার নিজের প্রথম কোম্পানিতে ফেইলার হয়েছেন;

ডিজনির ফাউন্ডারকে বলা হয়েছিলো, তার নাকি ক্রিয়েটিভিটি নেই;

স্টিভ জবসকে নিজের কোম্পানি থেকে অপমান করে বের করে দেয়া হয়ছিলো, যে অ্যাপলের জন্য নিজের সন্তান, স্ত্রী এবং কাছের বন্ধুদের অস্বীকার করেছিলেন এবং আঘাত করেছিলেন তিনি!


তাহলে?

আমার এক মেন্টর আমাকে বলেছিলেন,

“তোমাকে একটা মানুষ দুভাবে আঘাত করতে পারবে। মানসিক এবং শারীরিকভাবে।

শারীরিকভাবে আঘাত করলে তুমি তার বিরুদ্ধে কেইস করতে পারো, প্রমাণ দেখিয়ে। সে কিন্তু সহজেই জেলে যাবে। তোমার রাস্তা ক্লিয়ার।

কিন্তু মানসিকভাবে আঘাত করলে, সেটার শাস্তি কেউ তাকে দেবে না। কিন্তু খেয়াল করে দেখো, মনটা কিন্তু তোমার। তুমি সেটাকে কন্ট্রোল করতে পারলে কারো আঘাতেই কি তোমার কিছু আসবে-যাবে?”

ভেবে দেখুন! আর কত মানুষের কথায় পাত্তা দেবেন। ❌

নিজের কথা শুনুন একটাবার। নিজে যাচাই করুন, তারপরে জাজ করুন, তারপরে পা ফেলুন! 🔥


ইনার সার্কেলে ⭕️ আমার সব কোর্স তো ফ্রিইইইইইই, সাথে স্পেশাল প্যাকেজও ফ্রি; মাত্র ৮৯৯ টাকায়!

1 thought on “আর কত মানুষের কথায় কান দেবেন? আর কত?”

  1. ‘MuntasirMahdi Inner Circle‘ মূলত একটি প্রাইভেট এবং প্রিমিয়াম ফেসবুক কমিউনিটি, যেখানে আপনি ‘ওয়ান টাইম ফি’ দিয়ে আমার বর্তমান ও ভবিষ্যতের সবগুলো রেকর্ডেড কোর্স, বই, বুকলেটস, টেমপ্লেট এবং রিসোর্সেস – সম্পূর্ণ ফ্রিতে লাইফটাইমের জন্য অ্যাক্সেস পেয়ে যাবেন!

    Visit here: https://muntasirmahdi.com/inner-circle/

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *