মানুষ পণ্য কেনে না, ইমোশন কেনে!

আমি সিএসই নিয়ে পড়েছি অথচ বিবিএর একটা বিষয় মার্কেটিং নিয়ে আমি ক্যারিয়ার গড়তে চাচ্ছি, কাজ করছি এবং আয় করছি!

এটা অনেকের কাছেই হাস্যকর, এমনকি আমার কাছের অনেকের মাঝেও এই কারণে আমি হাসির পাত্র।

অনেকেই মনে করেন যে, মার্কেটিং মানে শুধুমাত্র কোনো জিনিস বিক্রি করা। এমনকি বাংলাদেশেও মার্কেটিং মানে – “নিজের মুখ বিক্রি করা”, “নিজেকে বিক্রি করা”, “কোনোমতে পেট চালানো”, “চলে আসছে ডিস্টার্ব করতে”, “যেকোনো কিছু বিক্রি করা!”

কিন্তু মার্কেটিং এগুলোর একটাও নয়।

মার্কেটিং মানে বিক্রি করা নয়, বিক্রি করার কাজ সেলসম্যানের, মার্কেটারের নয়।

মার্কেটিং মানে নিজেকে বেচে দেয়া নয়, মার্কেটিং মানে আরেকটা মানুষের ইমোশনকে নিজের করে নেয়া, তার ইচ্ছেকে নিজের করে নেয়া, সে যেটা যখন চাইছে সেটাই তার সামনে হাজির করা!

একটা উক্তি আছে,

“পিপল ডোন্ট বাই দ্যা প্রোডাক্ট, দে বাই ইমোশন, দে বাই এক্সপেরিয়েন্স!”

সামনে হাজারটা রেস্টুরেন্ট পড়ে থাকুক, আপনি যাবেন না। কারণ আপনার ক্ষিধে লাগে নি। যখন আপনার ক্ষিধের ইমোশনটা ট্রিগার করবে, তখন আপনি খাবেন, তখন দরকার পড়লে কিনে খাবেন!

সামনের দোকানে যত ভালো কাপড়ই পড়ে থাকুক না কেন, আপনি সেদিকে যাচ্ছেন না! আপনি যাচ্ছেন আপনার পুরনো পরিচিত একটা দোকানে। কারণ, তাদের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা ভালো, আন্ডারস্ট্যান্ডিং ভালো!

আজকে আপনি মার্কেটিং করছেন না বা জানেন না বলে, আপনি প্রতিনিয়ত মার্কেটারদের ট্রিকস আর স্ট্র্যাটেজির ফাঁদে পা দিচ্ছেন।

আজকে আপনার রেস্টুরেন্ট নেই বলেই আপনি আরেকজনের রেস্টুরেন্টে গিয়ে কাজ করছেন, খাচ্ছেন, ডেট করছেন!

মনে রাখবেন, ইফ ইউ আর নট পেয়িং ফর দ্যা প্রোডাক্ট দ্যান ইউ আর দ্যা প্রোডাক্ট! 🔥


ইনার সার্কেলে ⭕️ আমার সব কোর্স তো ফ্রিইইইইইই, সাথে স্পেশাল প্যাকেজও ফ্রি; মাত্র ৮৯৯ টাকায়!

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *