তোমার ঘ্রাণ – মুনতাসির মাহদী এর অনুগল্প

শীতের দুপুর। বাসার সামনের রাস্তায় শিমুল ফুল পড়ে আছে। বসন্ত আসি আসি করছে আসলে। তাই ফুল উঠতে শুরু করেছে। তার সাথে আমার শেষ কথা আজকেই হলো।

সে বলেছে, সে আমাকে ভালোবাসে, সে বলেছে সে জানে যে আমিও তাকে ভালোবাসি। কিন্তু আমার কাজের জন্য সে আমার থেকে দূরে চলে যেতে চায়। আমার কাছে থাকলে তার ক্ষতি হচ্ছে। আমার কাছে থাকলে তার স্বপ্ন ভেঙে যাচ্ছে। আমার কাছে থাকলে তার আলো নিভে যাচ্ছে। আমার কাছে থাকলে তার জীবন অতিষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমার কাছে থাকলে তার জীবন সামনে এগুচ্ছে না। আমার কাছে থাকলে তার ইচ্ছের মৃত্যু ঘটবে। কিন্তু সে বলেছে যে, সে আমাকে ভালোবাসে।

আমি তাকে বিশ্বাস করেছিলাম। তার জন্য সবকিছুই করতে চেয়েছি। যতটা পেরেছি সবকিছুই করেছি আমি। করি নি? উত্তর দাও! কিন্তু আমার কাজের জন্য তুমি আমার থেকে দূরে চলে গিয়েছ, যদিও তুমি আমাকে ভালোবাসো বলেছো।

আমি তাকে ভালোবেসেছিলাম। জীবনে প্রথম কাউকে এতটা চেয়েছি এতটা কাছে পেয়েছি, কোনোদিনও দূরে ঠেলে দেয়ার চিন্তা মাথাতেও আসে নি। এসেছে? বলো! কিন্তু আমার কাজের জন্য তুমি আমার থেকে দূরে চলে গিয়েছ, যদিও তুমি আমাকে ভালোবাসো বলেছো।

আমার স্বপ্নের শুরু থেকে প্রত্যেক ধাপে তুমিই ছিলে। আমার ভবিষ্যতের সাদা পৃষ্ঠাগুলোতেও আমি তোমার জন্যেই জায়গা রেখেছি। রাখিনি? কথা বলো! কিন্তু আমার কাজের জন্য তুমি আমার থেকে দূরে চলে গিয়েছ, যদিও তুমি আমাকে ভালোবাসো বলেছো।

আমার ভুল ছিলো আমি তোমার জন্যে পৃথিবী তৈরি করছিলাম, আমি তোমার জন্য আমার সবকিছুই দিয়ে দিচ্ছিলাম আর তুমি আমার কাজের জন্য আমার থেকে দূরে চলে গিয়েছ, যদিও তুমি আমাকে ভালোবাসো বলেছো।বলো? ভালোবাসোনা?

তোমার আয়ু ছিলো ৬৫, আমার আয়ু ছিলো ৬০। তুমি বলেছো তুমি আরো বাঁচতে চাও। আমি তোমাকে আমার আয়ু দিয়ে দিয়েছিলাম। এটাই আমার দোষ ছিলো? আমি মুসলিম নই, এটাই আমার দোষ! আমার সাথে বিছানাতেই সব মানায়, অন্য কোনো সময় নয়। তোমার চলে যাওয়ায় আমি বারবার বিছানায় যাই। যেখানে আমার সাথে ভোরে জেগে ওঠে ভিন্ন ভিন্ন নারী!

আজ ২৫শে ফেব্রুয়ারী। ১ বছর ৬ মাসের সম্পর্ক এভাবেই পুড়িয়ে দিয়েছো তুমি।

আজকে তোমার পাশে অন্য কোনো ছেলে, কিন্তু তোমার শরীরের ঘ্রাণ আমাতেই অভ্যস্ত। জিজ্ঞেস করে দেখো হাশরের ময়দানে! তোমার শরীর আমার পক্ষেই কথা বলবে!

তুমি কার অপেক্ষায় তা আমি জানি না, কিন্তু আমি অপেক্ষা করছি নতুন শয্যাসঙ্গিনীর। যাদের কাছে আমি তোমার ঘ্রাণ পাই! যারা আমার কাজের জন্য আমাকে ছেড়ে যাবে না। অন্তত রাতটা তো সুখে থাকবো!

By Muntasir Mahdi

Author, Marketer, Entrepreneur, Content Creator

1 comment

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *