দোষ আসলে কার?

মেয়েটা কেয়ার চায়, আপনি কেয়ার করতে পারেন না; আপনার দোষ।
মেয়েটা সারারাত জেগে আপনার সাথে কথা বলতে চায়, আপনি কথা বলতে পারেন না; আপনার দোষ।
মেয়েটা আপনার সাথে চ্যাট করতে চায়, আপনি চ্যাট করতে পারেন না; আপনার দোষ।
মেয়েটা প্রতিদিন অথবা সপ্তাহে অথবা প্রত্যেক ১৫/২০ দিনে একবার দেখা করতে চায় আপনার সাথে, আপনি পারেন না সময় দিতে; আপনার দোষ।
মেনে নিচ্ছেন? মেনে নিতেই হবে। দোষ আপনারই!
আপনি কেয়ার করতে পারেন না কারণ আপনি কাজে ব্যস্ত থাকেন। সারারাত, সারাদিন, নিজের শরীরের দিকে না তাকিয়ে, নিজের ভালো থাকার কথা চিন্তা না করে, খেয়ে না খেয়ে, ঘুমিয়ে না ঘুমিয়ে কাজে ব্যস্ত থাকেন।
এত কাজ কিসের? এত কাজ করতে হয়?
করতে হয় না?
মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুক তৈরি করতে গিয়ে কত মেয়ের, কত ছেলের অপমান সহ্য করেছে সেই জানে! স্টিভ জবস অ্যাপল তৈরি করতে গিয়ে নিজের শরীরের দিকে এতটাই অবহেলা করেছেন যে, শেষমেষ ক্যান্সারই বাঁধিয়ে বসেছিলেন!
অ্যাপেলের সিইও টিম কুক ২৪ ঘন্টায় মাত্র সাড়ে তিন ঘন্টা ঘুমাতেন। জেনারেল মোটোরস কোম্পানির হেড, ম্যারি ব্যারা তেত্রিশ বছর কষ্ট করে শেষমেষ নিজের কোম্পানিতে নিজে ফিরতে পেরেছেন।
অ্যামেরিকার সবচেয়ে ধনী ব্যবসায়ীদের একজন মার্ক কিউবান একটানা সাত বছর কারো সাথে যোগাযোগই করতে পারেন নি প্রথম ব্যবসা লঞ্চ করার শুরুতে। অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজস সারাদিনে ১২ ঘন্টার বেশি কাজে ব্যস্ত থাকতেন আর ৭ ঘন্টা বই পড়তেন। ইয়াহুর সিইও ম্যারিসা মেয়র প্রত্যেক সপ্তাহে ১৩০ ঘন্টা কাজে ব্যস্ত থাকতেন।
মেয়ে চাইছে আপনি তার সাথে বর্তমানে সময় ব্যয় করুন আর আপনি তার ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবছেন, আপনাদের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবছেন।
এখনো বলবেন দোষ আপনারই?!
রেকমেন্ডেড আর্টিকেলসঃ

 

 

By Muntasir Mahdi

Author, Marketer, Entrepreneur, Content Creator

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *